উগ্র সাম্প্রদায়িক বাসন্তী চাকমাকে অপসারণের দাবী পার্বত্য অধিকার ফোরামের

বাসন্তী চাকমাকে অপসারিত করা হোক

বাংলা ইনফো ডেস্কঃ

মহিলা সংসদ সদস্য ও খাগড়াছড়ি মহিলা আওয়ামীলীগ নেত্রী বাসন্তী চাকমার অপসারনের জন্য খাগড়াছড়ির বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল করছে পার্বত্য অধিকার ফোরাম।

উক্ত বিক্ষোভ মিছিলে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য অধিকার ফোরামের নেতৃবৃন্দ।

বিক্ষোভ মিছিলের আন্দোলনকারী মানুষের শুধু একটাই দাবি।বাসন্তী চাকমাকে অপসারন করা হোক।
উক্ত বিক্ষোভ মিছিলে পার্বত্য অধিকার ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি মাইন উদ্দিন। তিনি বলেন যে যদি বাসন্তী চাকমাকে যদি অপসারণ করা না হয় তবে আরও জোরদার আন্দোলন ও কর্মসূচি প্রদান করা হবে।

উগ্র সাম্প্রদায়িক বাসন্তী চাকমা ,রাষ্ট্র বিরোধী ও সংবিধান বিরোধী ভাবে পাহাড়ের বাঙালি জনগোষ্টি কে বহিরাগত ও সেটেলার অাখ্যা দেওয়া এবং দেশ প্রেমিক সেনাবাহিনী কে বহিরাগত ও খুনি বলা, ধর্মীয় অনুভূতি তে আঘাত করে কথা বলা সহ সশস্ত্র সংগঠন ইউপিডিএফ ও জেএসএস সন্ত্রাসীদের ভাই বলে সম্মোধন করার অপরাধে তাকে পাহাড় ত্যাগ করার দাবিতে, অনানুষ্ঠানিক ক্ষমা চেয়ে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করা, আওয়ামী লীগ হতে বহিস্কার করা ও ১ জন অসাম্প্রদায়িক নারী কে সংসদ সদস্য পদে মনোনয়ন দেওয়ার দাবিতে পার্বত্য অধিকার ফোরাম অদ্য ০৭/০৬/২০১৯ ইং তারিখে বিক্ষোভ সমাবেশ ও ৬ ঘন্টা অবস্থান কর্মসূচি পালন করে!

সে পাহাড় ত্যাগ না করলে ৯/০৬/১৯ ইং রবিবার খাগড়াছড়ি জেলা শহরে অবরোধ পালন করা হবে!

বাসন্তী চাকমার অপসারনের দাবিতে রোববার খাগড়াছড়িতে সকাল সন্ধ্যা অবরোধ ঘোষণা করা হয়েছে। পার্বত্যবাসীর দাবি শুধু একটাই বাসন্তী চাকমাকে অপসারিত করা হোক।এবং পার্বত্য চট্টগ্রামে বাঙালীরা বাহিরের দেশ থেকে আগত কোনো রোহিঙ্গা নয়।এবং সে একজন সংসদ সদস্য হয়ে কি করে পাহাড়ি বাঙালীকে ভাগ করে এবং কি করে বাংলার সোনার সন্তান বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদ রটনা করে।এবং বাসন্তী চাকমা সংসদে বলেছিল শান্তিবাহিনী বা পার্বত্য চট্টগ্রামের সন্ত্রাসবাহিনী ওনার ভাই।সে কথার ভিত্তি অনুযায়ী তিনি সন্ত্রাসীদের একজন বোন।সে অনুযায়ী একজন সন্ত্রাসীর বোন হিসেবে তিনি তার ভাইদের পক্ষ নিয়ে সংসদে কথা বলেছে।যার কারনেই পার্বত্যবাসীর এই বিক্ষোভ মিছিল ও কঠোর আন্দোলন বলে জানিয়েছেন পার্বত্য অধিকার ফোরামের নেতৃবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *