ফ্রান্সে বাঙালীরা হামলার শিকার হচ্ছে

প্যারিস সংলগ্ন এলাকা Église De Pantin এ এক প্রবাসী বাংলাদেশীর বাসায় পুলিশ পরিচয় দিয়ে এক দুষ্কৃতী দল ডাকাতি করে। ডাকাতির সময় তারা পুলিশের পরিচয় দিয়ে বাড়িতে ঢুকে বাড়ির মালিক(বাঙালী) তাকে মারধর করে এবং মাহীন নামের এক বাঙ্গালী কে মারধর করে তার হাত বেঁধে নগদ টাকা ও দামী জিনিস পত্র নিয়ে যায়। ডাকাত দল সবাই  আফ্রিকান বংশোদ্ভূত। গত ৩০-০৫-২০১৯ রাতে এ ঘটনাটি ঘটেছে। প্রায় সময়ই আফ্রিকানদের হাতে বাঙালীদের নির্যাতনের শিকার হতে হচ্ছে। কিছু দিন আগে ও প্যারিস এ বাঙালী কমিউনিটি অনুষ্ঠান চলাকালীন সময়ে এক বাঙ্গালী কে মারধর করে রক্তাক্ত করে মোবাইল ও টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যায়। ঘটনাটি ঘটে অনুষ্ঠান এর স্থান থেকে প্রায় ১০০ গজ এর মধ্যে। এছাড়া বিভিন্ন বাঙালী দোকানে আফ্রিকানরা অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে মারধর করে টাকাপয়সা ও মূল্যবান জিনিস পত্র নিয়ে যায়। একজন বাংলাদেশী অন্য জাতি দ্বারা নির্যাতন, চাকরি না পাওয়া, অসুস্থতা, দেশে লাশ পাঠানো, ভাষা শিক্ষা, ডাকাতি, ছিনতাই ভাংচুর এই ধরনের ঘটনায় বেশীরভাগ কমিউনিটি নিরব ভূমিকায় থাকে। ফ্রান্সে বাঙালীরা কাবাব , ইন্ডিয়ান রেস্টুরেন্ট, ফ্রেঞ্চ রেস্টুরেন্ট, সেলুন, টাক্সিফোন, মালামাল পরিবহন গাড়ী, কেজিনো , পোশাক এর দোকান, মনিহারী, মিষ্টি, বুশারি সপ ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে থাকে। আবার এই সপ গুলোতে বাঙ্গালীরাই কাজ করে অনেক সময়ে ক্রেতাদের সাথে সামান্য কথা কাটাকাটি হলে  নির্যাতন ও ভাংচুর এর শিকার হতে হয়। এদের মধ্যে বেশিরভাগই  আরাবিয়ান আফ্রিকান সন্ত্রাসী জড়িত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *